ঢাকামঙ্গলবার , ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. কৃষি ও অন্যান্য
  5. খেলাধুলা
  6. গল্প ও কবিতা
  7. জাতীয়
  8. তথ্যপ্রযুক্তি
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম ও জীবন
  11. প্রবাস
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. বিশেষ প্রতিবেদন
  15. মুক্তমত
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ত্রুটিপূর্ণ নিয়োগ বিধিমালা-২০২০ সংশোধনসহ ৮ দফা দাবিতে রেলমন্ত্রীকে স্মারকলিপি পেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪ ৫:৩০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির উদ্যোগে ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় ঢাকার রেল ভবন চত্বরে ত্রুটিপূর্ণ, সাংঘর্ষিক ও স্বৈরাচারীতা রেলওয়ে নিয়োগ বিধিমালা-২০২০ দ্রুত সংশোধন করে, রেলওয়ে কর্মচারী বান্ধব নিয়োগ বিধিমালা প্রণয়ন ও মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের আলোকে ৮৬৫ জন খালাসী এবং ১১১৩ জন ওয়েম্যানের ফলাফল থেকে অধিকার বঞ্চিত আন্দোলনরত পোষ্যদের দ্রুত নিয়োগসহ ৮ দফা দাবিতে মাননীয় রেলপথ মন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মসূচি শেষে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি’র সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনির এর সভাপতিত্বে তিন সদস্যদের একটি প্রতিনিধি দল রেলপথ মন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি পেশ করেন। স্মারকলিপি গ্রহণ করে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে বলেছেন রেলওয়ে পোষ্যরা যেন অধিকার বঞ্চিত না হয়। এ সময় রেলপথ মন্ত্রী রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির স্মারকলিপি পড়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে জানান।
এর আগে স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচিতে সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনির বলেন, মাননীয় মন্ত্রী আপনি রেলওয়ের চালিকা শক্তি, দায়িত্বশীল ও প্রধান কর্ণধার এবং সকলের অভিভাবক। আপনি মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর বাংলাদেশ রেলওয়ের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও পোষ্যদের মনে নতুন করে আশার সঞ্চার হয়েছে। “রেলওয়ে ক্যাডার বহির্ভূত কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা-২০২০” সম্পূর্ণ ত্রুটিপূর্ণ, সাংঘর্ষিক ও স্বৈরাচারিতামূলক। এই নিয়োগ বিধিমালা মূলত রেলওয়ের পোষ্য এবং শ্রমিক কর্মচারীদের অধিকার বঞ্চিত করার এক ঐতিহাসিক দলিল। ষড়যন্ত্রমূলক এই নিয়োগ বিধিমালা রেলওয়ে পোষ্য এবং শ্রমিক কর্মচারীরা নীতিগত ভাবে মেনে না নিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের সকল ট্রেড ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি আন্দোলন সংগ্রাম গড়ে তোলে। গত ২১ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি কর্তৃক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানের প্রেক্ষিতে ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালককে আহবায়ক করে ১৮ সদস্য বিশিষ্ট নিয়োগ বিধিমালা ২০২০ হালনাগাদ/সংশোধন করণের জন্য কমিটি গঠিত হয়। কিন্তু গত ২৬ মাসেও কমিটি কর্তৃক নিয়োগ বিধিমালা ২০২০ সংশোধন না করেই গায়েবী বিধিমালায় সম্পূর্ণ অবৈধভাবে জনবল নিয়োগ কার্যক্রমের মাধ্যমে রেলওয়ে পোষ্যদের অধিকার বঞ্চিত করা হচ্ছে এবং আউটসোর্সিং এর নামে প্রায় ৮ হাজার দক্ষ টিএলআর শ্রমিককে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। নিয়োগ বিধিমালা ২০২০ অনতিবিলম্বে সংশোধন করে রেলওয়ে কর্মচারী বান্ধব নিয়োগ বিধিমালা প্রণয়নে “রেলওয়ে ক্যাডার বহির্ভূত কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা-২০২০” এর বিভিন্ন অংশগুলো সংশোধনের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির প্রস্তাবনা এবং মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের আলোকে ৮৬৫ জন খালাসীর ফলাফল থেকে অধিকার বঞ্চিত রেলওয়ে পোষ্যদের দ্রুত নিয়োগ, নিয়োগবিধি ১৯৮৫ আলোকে পোষ্যর সংজ্ঞা, নিয়োগ পদ্ধতি, পদোন্নতির মাধ্যমে নিয়োগ, সরাসরি নিয়োগ, শিক্ষাগত যোগ্যতা, ব্লক পোস্ট প্রত্যাহার, রেলওয়ে নিয়োগ ব্যুরো পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চল মহাব্যবস্থাপক কতৃর্ক ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগের পূর্ণ ক্ষমতা প্রদানসহ ৮ দফা দাবিতে আপনার বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করছি।

কর্মসূচিতে আরো উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক মল্লিক, সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সরকার বাপ্পি, অর্থ সম্পাদক সোহেল হোসেন সাবু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন বাবু, শামীম মাহমুদ লিমন, ক্রীড়া সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, কেন্দ্রীয় কমিটির আজীবন সদস্য এমদাদুল হক, রাজবাড়ী জেলা শাখার সভাপতি কাওসার আহমেদ হেলাল, সহ-সভাপতি মুন্নু হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান, কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম কনক, সৈয়দপুর শাখার সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান মানিক, আখাউড়া শাখার আহ্বায়ক রাজিয়া বেগম, চট্টগ্রাম জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক শাকেল হোসেন, কার্যকরী সদস্য মোঃ শামীম প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির নিম্নোক্ত ৮ দফা দাবি পেশ করা হয়:
১. ত্রুটিপূর্ণ “নিয়োগ বিধিমালা-২০২০” সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত গায়েবী নিয়োগ বিধিতে চলমান জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ এবং রেলওয়ে কর্মচারী বান্ধব নিয়োগ বিধিমালা প্রণয়ন, প্রতিটি রেল কর্মচারীর পরিবার থেকে কমপক্ষে একজন পোষ্য’র চাকুরি নিশ্চিতকরণ এবং নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ অনুযায়ী জারিকৃত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির পরীক্ষা গ্রহণ ও নিয়োগ সম্পন্ন করার দাবি জানাচ্ছি।
২. ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে ঘোষিত ৮৬৫ জন খালাসীর ফলাফল থেকে অধিকার বঞ্চিত পোষ্যদের মামলায় মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের আলোকে এবং আন্দোলনরত রেলওয়ে পোষ্যদের দ্রুত নিয়োগ সম্পন্ন করণ ও ১১১৩ জন ওয়েম্যানের ফলাফল থেকে অধিকার বঞ্চিত আন্দোলনরত রেলওয়ে পোষ্যদের অনুমোদিত তালিকায় নিয়োগ প্রদান এবং পোষ্যদের অধিকার নিশ্চিতকরণে নিয়োগ কার্যক্রমে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটিকে পর্যবেক্ষক সংস্থা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানাচ্ছি।
৩. জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে মোট শূন্য পদের বিপরীতে পোষ্যদের জন্য সংরক্ষিত ৪০% কোটায় স্বতন্ত্র নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশসহ স্বতন্ত্রভাবে পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল প্রকাশ নিশ্চিত করতে বিষয়টি নিয়োগ বিধিমালাতে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।
৪. প্রকল্পে নিয়োজিত শ্রমিকদের স্থায়ীকরণঃ রেলওয়েতে সকল প্রকার আউটসোর্সিং এর নামে পকেটসোর্সিং বন্ধ করতে হবে। প্রয়োজনে জনবল সংকট সমাধানে সাবস্টিটিউট নিয়োগ ও রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির নিকট থেকে অসহায়-দরিদ্র রেলওয়ে পোষ্যদের তালিকা গ্রহণ পূর্বক টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করে জনবল সংকট সমাধান করার দাবি জানাচ্ছি।
৫. অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত্যুবরণকারী কর্মচারীদের ফাইনাল সেটেলমেন্ট এর কাজ সরকার নির্ধারিত দুই মাস সময়ের মধ্যে দ্রুত নিষ্পত্তি করণ ও কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী শ্রমিক কর্মচারীর পোষ্যদের যোগ্যতানুযায়ী দ্রুততার সহিত সরাসরি নিয়োগযোগ্য ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর পদে নিয়োগ সম্পন্নকরণ এবং যে সকল পোষ্যদের নিয়োগ দীর্ঘদিন থেকে অকারণে আটকে আছে, তাদের নিয়োগ সম্পন্ন এবং নিয়োগের ক্ষেত্রে আবেদনের বয়সসীমা ৩০ এর স্থলে ৩২ বছর করার দাবি জানাচ্ছি।
৬. রেলওয়ের রাজস্ব আয় বৃদ্ধি ও রেলওয়ে পোষ্যদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে রেলওয়ের ভূমি লীজ প্রদান প্রক্রিয়া পুনর্গঠন করে অব্যবহৃত ভূমি রেলওয়ে পোষ্য সুপার মার্কেট, বনায়ন, মৎস্য, কৃষি ও গবাদি পশু পালন প্রকল্পের মাধ্যমে রেলওয়ে পোষ্যদের বেকারত্বের অভিশাপ হতে মুক্তির লক্ষ্যে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সমিতি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির ন্যায় বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটিকে ভূমি লীজ প্রদান ও রেলওয়ের ভূমিতে পিপিপি’র আওতায় যে সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে ভূমি লীজ দেওয়া হচ্ছে, সে সকল প্রতিষ্ঠানে জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রেলওয়ে পোষ্যদের নিয়োগের বিষয়টি চুক্তিপত্রে উল্লেখ করার দাবি জানাচ্ছি।
৭. নিয়োগ, ক্রয়, ঠিকাদারী কাজ ও প্রকল্প বাস্তবায়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধিসহ সকল প্রকার দুনীর্তির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত টিম কতৃর্ক দ্রুততম সময়ে তদন্ত সাপেক্ষে সকল ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
৮. রেলওয়ে শ্রমিক-কর্মচারী ও পোষ্যদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকল্পে রেলওয়ে হাসপাতাল সমূহে আধুনিক চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতকরণ, রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীর সন্তানদের স্বল্প ব্যয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের লক্ষ্যে রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির অধীনে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ন্যায় রেলওয়ে পোষ্য ইন্টারন্যাশনাল-স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, টেকনিক্যাল ও মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠায় অব্যবহৃত রেল ভূমি লীজ প্রদান এবং অবসরপ্রাপ্ত ও কর্মরত শ্রমিক কর্মচারীদের আবাসনের জন্য ১০ শতাংশ করে পরিত্যক্ত রেল ভূমি লীজের মাধ্যমে স্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করার দাবি জানাচ্ছি।

%d bloggers like this: