ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. কৃষি ও অন্যান্য
  5. খেলাধুলা
  6. গল্প ও কবিতা
  7. জাতীয়
  8. তথ্যপ্রযুক্তি
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম ও জীবন
  11. প্রবাস
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. বিশেষ প্রতিবেদন
  15. মুক্তমত
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অভিষেকেই ৪ গোল, রেকর্ডবুকে ঝড় হলারের

দৈনিক পাঞ্জেরী
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১ ২:৩৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

স্পোর্টস ডেস্ক : গতকাল বুধবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে স্পোর্টিং লিসবনের বিপক্ষে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে জিতেছে নেদারল্যান্ডসের ক্লাব আয়াক্স এফসি। প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে পাওয়া বড় জয়ে একাই চার গোল করেছেন আয়াক্সের অভিষিক্ত আইভোরিয়ান ফরোয়ার্ড সেবাস্তিয়ান হলার। অথচ ক্লাবের প্রশাসনিক ভুলের কারণে গত বছরের ইউরোপা লিগে খেলতে পারেননি ২৭ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড। ইংলিশ ক্লাব ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড তার ওপর আস্থা রাখতে না পেরে, বেচে দিয়েছিলো আয়াক্সের কাছে।
সেই তিনিই এবার চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের অভিষেক ম্যাচে ছোটালেন রেকর্ডের ফুলঝুরি। ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের আসরে মাত্র দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে অভিষেকেই চার গোল করলেন হলার।
তার আগে ১৯৯২ সালে এসি মিলানের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের অভিষেক ম্যাচে ৪ গোল করেছিলেন মার্কো ফন ভাস্তেন। তবে ততদিনে ইউরোপিয়ান কাপ প্রতিযোগিতায় খেলার অভিজ্ঞতা হয়ে গিয়েছিল ভাস্তেনের। পরে ইউরোপিয়ান কাপেরই নাম বদলে রাখা হয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগ।
তাই চ্যাম্পিয়নস লিগের অভিষেক ম্যাচে ৪ গোল করা খেলোয়াড়ের তালিকায় প্রথম নামটি ভাস্তেনেরই ধরা হয়। সে তালিকায় এখন দ্বিতীয় ফুটবলার হলেন সেবাস্তিয়ান হলার।
স্পোর্টিং লিসবনকে উড়িয়ে দেয়া ম্যাচের ৬৮ সেকেন্ডেই প্রথম গোল করেন হলার। দ্বিতীয় গোলটি করেন ম্যাচের নবম মিনিটে। যার সুবাদে চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে প্রথম ফুটবলার হিসেবে মাত্র ৯ মিনিটেই জোড়া গোলের রেকর্ড গড়েন তিনি।
পরে ৫১ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন এ আইভোরিয়ান এবং ৬৩ মিনিটে দেন নিজের শেষ গোলটি। তার সৌজন্য দীর্ঘ ২৬ বছর পর চ্যাম্পিয়নস লিগে হ্যাটট্রিকের দেখা পেলো আয়াক্স। এর আগে ১৯৯৫ সালে আয়াক্সের হয়ে সর্বশেষ হ্যাটট্রিক করেছিলেন জারি লিটমানেন।
সবমিলিয়ে ২৭তম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগের এক ম্যাচে চার গোলের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন হলার। তবে আফ্রিকা মহাদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে প্রথম হিসেবেই চার গোলের দেখা পেলেন তিনি।

%d bloggers like this: