ঢাকারবিবার , ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. কৃষি ও অন্যান্য
  5. খেলাধুলা
  6. গল্প ও কবিতা
  7. জাতীয়
  8. তথ্যপ্রযুক্তি
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম ও জীবন
  11. প্রবাস
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. বিশেষ প্রতিবেদন
  15. মুক্তমত
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সাতক্ষীরায় আলোচিত পূর্ণিমা ধর্ষণ-হত্যাকাণ্ডের আসামি পার্থ মণ্ডল আটক

সরদার আবুসাইদ, সাতক্ষীরা
সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১ ২:৩৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সাতক্ষীরা দেবহাটা উপজেলার টিকেট এলাকার আলোচিত পূর্ণিমা ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের আসামি পার্থ মণ্ডলকে গতকাল শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সাতক্ষীরা সদরের বৈকারী সীমান্ত থেকে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় আটক করেছে পুলিশ। এ বিষয়ে আজ রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টায় জেলা পুলিশ সুপারের কার্যলয়ে প্রেস ব্রিফিং করেছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন,  গত ২৪ সেপ্টেম্বর আনুমানিক সকাল ৬টার সময় দেবহাটা থানাধীন টিকেট গ্রামস্থ তারক বাবুর পুরাতন পরিত্যক্ত বাড়িতে স্থানীয়রা লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশের সংবাদ দেয়।
তাৎক্ষণিকভাবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সজীব খানের নেতৃত্বে ও জেলা গােয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ মাে. ইয়াছিন আলম চৌধুরী এর সম্বন্বয়ে একটি চৌকস টিম মামলার মূল রহস্য উদঘাটন শুরু করে এজাহার নামীয় একমাত্র আসামি দেবহাটার টিকেট এলাকার শিবু মন্ডলের ছেলে পার্থ মন্ডল (২১)কে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে করে বৈকারী সীমান্ত থেকে আটক করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে আসামি পার্থ মন্ডল স্বীকারােক্তিকালে জানান, গাভা এ, কে, এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় পড়াশুনাকালে ভিকটিম পূর্ণিমা দাস ও আসামি পার্থ মন্ডল এর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে । ৩ বছর ধরে প্রেম ছিল। বর্তমানে ভিকটিম পূর্ণিমা দশম শ্রেণীর ছাত্রী এবং আসামি পার্থ মন্ডল এসএসসি পাশ করে খান বাহাদুর আহসান উল্লাহ প্যারামেডিক্যালে ২য় সেমিস্টারে অধ্যয়নরত।
৪ মাস আগে তাদের প্রেমের সম্পর্ক উভয় পরিবারের সাথে জানাজানি হয়ে গেলে উভয় পরিবার তাদের প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় হতাশাগ্রস্ত হয়ে আসামি পার্থ মন্ডল বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে । পরে চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে যায় ।
আসামি অসুস্থ থাকাকালীন তার প্রেমিকা পূর্ণিমা দাস আসামির কোন খোঁজ-খবর না নিয়ে তাকে এড়িয়ে চলে এবং পরবর্তীতে এলাকায় ও এলাকার বাইরে একাধিক ছেলের সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়ায়।
এ ধরনের সংবাদ আসামির কানে আসলে আসামি পার্থ মন্ডল ভিকটিম পূর্ণিমার প্রতি ক্ষিপ্ত হয় এবং মনে মনে পরিকল্পনা করে সে পূর্ণিমাকে না পেলে অন্য কাউকে তাকে পেতে দিবে না ।
সুযােগ বুঝে আসামি ভিকটিম পূর্ণিমাকে হত্যা করবে। হত্যা সংঘটনের ১ থেকে দেড় মাস আগে থেকে মােবাইল ফোনের কথােপকথনের মাধ্যমে তাদের মধ্যে আবার সখ্যতা তৈরি হয়।
পূর্বপরিকল্পনার অংশ হিসেবে গত ২৪ সেপ্টেম্বর তারিখ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় দেবহাটা থানাধীন টিকেট গ্রামস্থ তারক বাবুর পুরাতন পরিত্যক্ত বাড়িতে ভিকটিম পূর্ণিমা আসামি পার্থ মন্ডলের সাথে দেখা করে। ঘটনাস্থলে কথাবার্তার একপর্যায়ে আসামি তার কাছে থাকা কালাে ক্যাবল তার দিয়ে ভিকটিমের গলায় পেঁচিয়ে দিয়ে শ্বাসরােধ করে অচেতন করে মাটিতে ফেলে দেয় এবং পরবর্তীতে ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ভিকটিমের শরীরে বিভিন্ন স্থানে কামড় দিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে সর্বশেষ তার হাত দিয়ে গলার টুটি চেপে ধরে মৃত্যু নিশ্চিত করে।
হত্যার পর দ্রুত সাতক্ষীরা শহরে সাইকেলযোগে পালিয়ে চলে এসে শহরের বড় বাজারস্থ প্রাণ সায়ের খালে তার ব্যবহৃত মােবাইল ফোন সিমসহ ফেলে দিয়ে রাতে পুরাতন সাতক্ষীরার এলাকায় বসুন্ধরা ম্যাচে অবস্থান করে।
পরেরদিন ভােরে জেলার বিভিন্ন জায়গায় ছােটাছুটি করে বৈকারী সীমান্ত থেকে ভারতে যাওয়ার সময় আটক হয়। আসামির স্বীকারােক্তি অনুযায়ী হত্যাকাজে ব্যবহৃত ক্যাবল ও তার সাইকেল উদ্ধার করা হয়। তার ব্যবহৃত মােবাইল ফোনটি উদ্ধারের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

%d bloggers like this: